What is Welding & Classification of welding methods

Welding & Classification of welding methods

প্রিয় শিক্ষার্থী, এই পর্বে Welding Subject এর উপর আমি আলোচনা করব। এর আগের পর্বে Automobile এর Internal combustion Engine এর Main Parts সম্পর্কে আলোচনা করেছি। আশা করি কিছুটা হলেও উপকৃত হয়েছেন। যারা এখন এ সম্পর্কে পড়েননি, তারা আমার এ লিংক থেকে পড়তে পারবেন। আজ ওয়েল্ডিং এর যেসব বিষয় নিয়ে আলোচনা করব তা হলোঃ ওয়েল্ডিং কী? ওয়েল্ডিং এর সুবিধা অসুবিধা, Main classification of welding, ফিউশন ওয়েল্ডিং, নন ফিউশন ওয়েল্ডিং, আর্ক ওয়েল্ডিং ও আর্ক কী ইত্যাদি। এছাড়া ওয়েল্ডিং প্রতিটি অংশ ধারাবাহিকভাবে পোস্ট করা হবে সুন্দর করে। যাতে সহজে বুঝতে পারেন। আর এ পোস্ট গুলো সহজ করে করি যাতে জব পরীক্ষার জন্য তাড়াতাড়ি প্রতিটি বিষয়ে জানতে পারেন। আশা করি যেকোন বিষয়ে প্রশ্ন রাখবেন, আমি উত্তর দেব ইনশাল্লাহ্।

প্রশ্নঃ Welding বলতে কি বুঝ ? Welding সুবিধা অসুবিধা গুলি লিখ।

উত্তরঃ একই Metal দ্বারা তৈরি দুটি অংশ(parts) বা বস্তু(Mass) কে গলিত বা অর্ধগলিত অবস্থায় চাপ প্রয়োগে অথবা চাপ প্রয়োগ ছাড়া স্থায়িভাবে জোড়া(bonded) দেবার পদ্ধতিকে Welding বলে । ওয়েল্ডিং পদ্ধতির সুবিধাঃ 1) জটিল (Compound) গঠনের যন্ত্রাংশ মেরামতের (Repair )কাজ বা জোড়া(bonded) দেওয়ার কাজ যা অন্য পদ্ধতিতে সম্ভব না তা Welding পদ্ধতিতে করা যায় । 2) ইহাতে যে সরাঞ্জাম(instruments) ব্যবহার করা হয় সেগুলো সহজে স্থানান্তর(Transfer) যোগ্য এবং তেমন ব্যয়বহুল(Expensive) না । 3) ওয়েল্ডিং জোড়া(Welding pairs) মূল ধাতুর(Main Metal) কিংবা মুল ধাতুর চাইতে শক্ত(Hard) হতে পারে তাই এই পদ্ধতিতে জোড়ার দক্ষতা(efficiency) বেশি ।

ওয়েল্ডিং পদ্ধতির(Welding methods) অসুবিধাঃ 1) ওয়েল্ডিং পদ্ধতিতে ক্ষতিকারক(Harmful) আলোক রশ্মির(Light rays) বিকিরণ(Radiation) ঘটে যা অপারেটর(Operator) এবং অন্যান্যদের ক্ষতির কারন হয়ে দাড়ায় । 2) ওয়েল্ডিং জোড়া অমসৃণ(Uneven) হয়ে থাকে । 3) জোড়ার ভিতর অভ্যান্তরিণ(Internal) স্ট্রেস(Stress) সৃষ্টি হয় । 4) দক্ষ শ্রমিকের(Efficient workers) প্রয়োজন হয় ।

প্রশ্নঃ ওয়েল্ডিং পদ্ধতির(Welding methods) শ্রেণীবিভাগ(Classification) দেখাও ।

উত্তরঃ ওয়েল্ডিং পদ্ধতি প্রধানত ২ প্রকারঃ 1. ফিউশন পদ্ধতি(Fusion method) 2. নন ফিউশন ওয়েল্ডিং(Non Fusion Welding) ফিউশিন ওয়েল্ডিং আবার ২ ভাগে ভাগ করা যায়। ১. গ্যস ওয়েল্ডিং(Gas welding) ২. আর্ক ওয়েল্ডিং(Arc welding)

প্রশ্নঃ ওয়েল্ডিং এর প্রধান দুইটি ভাগ কি কি (Main classification of welding)? এবং তাদের সঙ্গা দাও ।

1) ফিউশন ওয়েল্ডিং(Fusion welding) 2) নন ফিউশন ওয়েল্ডিং(Non fusion welding) ফিউশন ওয়েল্ডিং(Fusion welding ঃ যখন দুইটি ধাতব খন্ডকে গলন তাপমাত্রায়(Melting temperature) উত্তপ্ত করে গলিত অবস্থায়(In molten condition) কোন প্রকার চাপ প্রয়োগ ছাড়া(Without pressure applied) জোড়া দেওয়া হয় তাকে ফিউশন ওয়েল্ডিং বলে । এই পদ্ধতিতে ফিলার মেটাল(Filler Metal) ব্যবহার করা হয় । যেমন- গ্যাস ওয়েল্ডিং ,আর্ক ওয়েল্ডিং ইত্যাদি । নন- ফিউশন ওয়েল্ডিং(Fusion welding) ঃ যখন দুইটি ধাতব খন্ডকে গলন তাপমাত্রার নিচে(Melting temperature below) একটি নির্দিষ্ট তাপমাত্রা(temperature) পর্যন্ত উত্তপ্ত করে অর্ধগলিত অবস্থায়(In half molten condition) চাপ প্রয়োগে জোড়া দেওয়া হয় তাকে নন- ফিউশন ওয়েল্ডিং বলে। যেমন- ফোর্স ওয়েল্ডিং , রেজিস্টেন্স ওয়েল্ডিং ইত্যাদি প্রশ্নঃ ওয়েল্ডিং জোড়া কি ? কি উহা কত প্রকার । উত্তরঃ ওয়েল্ডিং জোড়া(Welding pairs) পদ্ধতিতে যেসব জোড়া দেওয়া হয় তাকে ওয়েল্ডিং জোড়া বলে। ওয়েল্ডিং জোড়া সাধারনত ৫ প্রকারঃ

                        Flag welding joint

a) But joint b) lap joint c) t- joint d) corner joint E) edge joint

প্রশ্নঃ আর্ক(Arc) কাহাকে বলে ? ইহা কি ভাবে সৃষ্টি হয় ? উহার সর্বাধিক তাপমাত্রা কত ? উত্তরঃ আর্কঃ চলবিদ্যুৎ(Dynamite) সম্পন্ন ধাতব বাষ্পের(Metallic steam) জ্বলন্ত প্রবাহ(Burning flows) কে আর্ক বলে । বিদ্যুৎ বর্তনির(Electric circuit) দুটি পরিবাহির(Conductivity) মধ্যে যদি স্বল্প পরিমানে ফাঁকা জায়গায়(In empty space) থাকে এবং ঐ ফাকা জায়গায় দিয়ে বিদ্যুৎ প্রবাহের(Electricity flow) মতো যথেষ্ট বৈদ্যুতিক চাপ বা ভোল্টেজ থাকে। তবে সেখানে এই আর্কের সৃষ্টি হয় । ( বৈদ্যুতিক আর্কের সর্বাধিক তাপমাত্রা -১১০০০ডিগ্রি ফাঃ(৬০৯৩.৩ ডিগ্রি সে)

প্রশ্নঃ আর্ক ওয়েল্ডিং(Arc welding) কি ? ইলেকট্রিক আর্ক ওয়েল্ডিং(Electric Arc Welding) এর মুল তত্ব কি ?

আর্ক ওয়েল্ডিংঃ ওয়েল্ডিং করিবার যে পদ্ধতি ইলেকট্রিাড(Electrodes) এবং কার্য বস্তুর(Work piece) মধ্যে আর্ক সৃষ্টি করিয়া উৎপন্ন তাপের সাহায্যে ধাতুকে পূর্ণ গলিত অবস্থায় আনিয়া জোড়া দেওয়া হয় তাকে আর্ক ওয়েল্ডিং বলে । আর্ক ওয়েল্ডিং এর মূলনীতি(The principles of the arc welding): একটি বর্তনীর দুইটি পরিবাহী প্রান্তের মধ্যে যদি সামান্য ফাঁকা স্থান রাখা হয় যাতে এক প্রান্ত হতে অপর প্রান্তে বিদ্যুৎপ্রাবাহের মতো যথেষ্ট বৈদ্যুতিক চাপ(Electrical pressure) থাকে তবে ঐ ফাকা স্থানে আর্কের সৃষ্টি হয় । আর্কের ফলে সেখানে প্রচন্ড তাপের সৃষ্টি হয় । আর্ক ওয়েল্ডিং পদ্ধতিতে এই তাপের সাহায্যে ধাতু গলাইয়া জোড়া দেওয়া হয় । ইহাই আর্ক ওয়েল্ডিং এর মূল তত্ব বা মূলনীতি ।

প্রশ্নঃ আর্ক ওয়েল্ডিং এ ব্যবহ্রত যন্ত্রপাতির নাম লিখ ।

১) ইলেকট্রোড(Electrode) ২) ইলেকট্রোড হোল্ডার(Electrode holder) ৩) বৈদ্যুতিক উৎস(Electric source) ৪) হ্যান্ড শীল্ড(Hand Shield) ও ও হেল্ড শীড(Hold Shield) ৫) হ্যান্ড গ্লোভস(Hand gloves) , ইত্যাদি ।

প্রশ্নঃ ইলেকট্রোড(Electrode) কি ? ইহা কত প্রকার ও কি কি ?
ইলেকট্রোড : ইলেকট্রোড হচ্ছে এক প্রকারের শলাকা বা দন্ড যাহা আর্ক ওয়েল্ডিং এর সময় হোল্ডার হইতে কার্য বস্তু পর্যন্ত চার্জ(Charge) বহন করে এবং আর্ক সৃষ্টি করে । ইলেকট্রোড অনেক সময় নিজে গলিয়া জো[ড়া স্থানে ধাতু সরবরাহ করে । ইহার ব্যাস সাধারনত ১/১৬হইতে ………………………………… ইলেকট্রোড(Classification of electrodes) কে প্রধানত ৪ ভাগে ভাগ করা যায়। 1) আবরন বিহিন ইলেকট্রোড(without cover electrode)
2) কার্বন বা গ্রাফাইট ইলেকট্রোড(Carbon/Graphite electrodes) 3) আবারন যুক্ত ইলেকট্রোড(Cover with electrodes)
4) টাংস্টেন ইলেকট্রোড(Tungsten Electrodes) প্রশ্নঃ ইলেকট্রোডের গায়ে যে আবরণ ব্যবহার করা হয় তাদের উপাদান সমহু লিখ ।

১) গ্যাস গঠন উপাদান : সেলুলুজ(Cellulose) , ক্যালসিয়াম(Calcium) , কার্বনেট(Carbonate) ,ষ্ট্রার্চ(Starch) ইত্যাদি । এই জাতীয় উপাদান ওয়েল্ডিং জোনের উপর একটি গ্যাসিয় আবরন সৃস্টি করে এবং চারিদিকে বাতাস হইতে ওয়েল্ডিং জোন(Welding Zone) কে রক্ষা করি । ওয়েল্ডিং পরবর্তী পোস্ট এখানে ক্লিক করুন অথবা মেনু Welding Subject থেকে খুঁজে নিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *