Jaflong Sylhet

Jaflong Sylhet

বাংলাদেশের দর্শনীয় স্থানগুলোর মধ্যে জাফলং (Jaflong Sylhet) খুবই উল্লেখযোগ্য স্থান, এটি প্রকৃতির কন্যা হিসেবে খ্যাত। বাংলাদেশের সিলেট জেলার দর্শনীয় ভ্রমণের স্থান গুলোর মধ্যে জাফলং সবার প্রিয়। ভারতের মেঘালয় সীমান্তবর্তী সিলেট জেলার গোয়াইনঘাট উপজেলায় অপরূপ সাজে সাজিয়ে আছে জাফলং। সিলেট জেলা থেকে দর্শনীয় স্থান জাফলং এর দূরত্ব প্রায় 62 কিলোমিটার। ঝুলন্ত ব্রিজ, ডাউকি ব্রিজ, পিয়াইন নদীর স্বচ্ছ পানি এবং উঁচু পাহাড় এর মেঘেদের খেলা জাফলং কে অপরুপ করে সাজিয়ে আছে। পর্যটন প্রেমিকেরা সারা বছরই জাফলংয়ে এসে থাকে, কারণ ঋতু বদল এর সাথে সাথে জাফলং এর রূপের ও প্রকাশ ঘটে।

কিভাবে জাফলং এ যাওয়া যাবে?

বাংলাদেশের চায়ের দেশ হিসেবে খ্যাত সিলেট জেলা, তাই জাফলং আসতে হলে ছেলেটি আসতে হবে। দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে ভ্রমণ প্রেমিরা নানান উপায় জাফলং আসতে পারে। বাংলাদেশের বিভিন্ন জেলা থেকে সিলেটে আসা গেলেও আমি সহজ করে বোঝানোর জন্য ঢাকা কেই বেছে নেব। কারন সবার পরিচিত ঢাকা শহর এবং ঢাকা থেকে খুবই সহজে জাফলং এ আসা যায়। ঢাকা শহরের বিভিন্ন জায়গা থেকে সিলেটের বাস পাওয়া যায়। যেমনঃ গাবতলী, ফকিরাপুল, সায়েদাবাদ, আব্দুল্লাহপুর ও মহাখালী বাস টার্মিনাল থেকে বাস পরিবহন পাওয়া যায়।

সিলেটে যাওয়ার জন্য এসি ও নন নন এসি বাস পাওয়া যায়। সেগুলোর মধ্য সৌদিয়া, গ্রীনলাইন, এস আলম, এনা ও শ্যামলী পরিবহন। তবে এনা পরিবহনের এসি বাস পাওয়া যায়। এসি ও নন এসি বাস গুলোর ভাড়া কিছু পরিবর্তন রয়েছে। নন এসি বাসের ভাড়া সাধারণত 400 থেকে 500 টাকা এবং এসি বাসের ভাড়া 800 টাকা থেকে 500 টাকার মধ্যে হবে। ঢাকা থেকে সিলেটে যেতে প্রায় ছয় ঘন্টা সময় লাগে, কারণ সিলেটের দূরত্ব প্রায় 240 কিলোমিটার। ঢাকার বিভিন্ন স্থান থেকে রাত, দুপুর, সকাল সব সময় সিলেটের বাস পাওয়া যায়।

ঢাকা থেকে সিলেটে ট্রেনে যাওয়ার উপায়?

আপনার জেলা শহর থেকে ঢাকার কমলাপুর স্টেশন অথবা বিমানবন্দর রেলওয়ে স্টেশন এ আসতে হবে। এখান থেকে কালনী এক্সপ্রেস, উপবন এক্সপ্রেস, জয়ন্তিকা এক্সপ্রেস ও পারাবত এক্সপ্রেস ট্রেন পাওয়া যায়। বাস এর থেকে ট্রেনে যেতে একটু সময় বেশি লাগে। সেক্ষেত্রে ট্রেনে করে সিলেটে যেতে প্রায় সাত থেকে আট ঘণ্টা সময় লাগবে। ট্রেনের আসন ভেদে জন প্রতি ভাড়া 280 টাকা থেকে বারোশো টাকা পর্যন্ত।

অতি দ্রুত সময়ে জাফলং যেতে চাইলে আকাশ পথ চেয়ে পথকে বেছে নিতে পারেন। শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে বিমান প্রতিদিন সিলেটের উদ্দেশ্যে সেরে যায়। ইউ এস বাংলা এয়ার, ইউনাইটেড এয়ার, বিমান বাংলাদেশ, রিজেন্ট এয়ার বিমান সমূহ বিভিন্ন সময়ে সিলেটের উদ্দেশ্যে যাত্রা করেন। বিমানগুলোর ক্লাস অনুসারে জনপ্রতি ভাড়া ও ভিন্ন হয়ে থাকে। তবে সাধারণত 3 হাজার টাকা থেকে 10 হাজার টাকা মধ্যে হয়ে যাবে।

চট্টগ্রাম থেকে সিলেটে যাবার উপায়

তাছাড়া বাংলাদেশের উল্লেখযোগ্য স্থান চট্টগ্রাম হতে যাওয়া যায়। চট্টগ্রামের জেলা শহর থেকে এনা পরিবহন, গ্রীন লাইন, সৌদিয়া বাস পাওয়া যায়। এসি বাস এবং নন এসি বাসের উপর ভিত্তি করে ভাড়া 500 টাকা থেকে 2000 টাকা হয়ে থাকে। তাছাড়া চট্টগ্রাম থেকে ট্রেন যোগেও চায়ের দেশ সিলেট এ যেতে পারবেন। এজন্য চট্টগ্রাম স্টেশন থেকে উদয়ন এক্সপ্রেস এবং পাহাড়িকা ট্রেনে যেতে পারবেন। তবে ট্রেনের সিডিউল জানা খুবই জরুরী কেননা, সপ্তাহে মাত্র 6 দিন চলাচল করে। ট্রেনের ভাড়া আসন বোয়ালিটি অনুযায়ী 100 টাকা থেকে 1000 টাকা হবে।

কিভাবে সিলেট থেকে জাফলং যাওয়া যায়?

ঢাকা অথবা চট্টগ্রাম থেকে সিলেটে আসার পর বিভিন্ন উপায়ে জাফলং এ আসা যায়। সিলেটের শিবগঞ্জে থেকে লোকাল বাসে মাত্র 80 টাকা ভাড়া দিয়ে জাফলং এ যেতে পারবেন। অটোরিকশায় বা সিএনজি যোগে মাত্র 1000 টাকা থেকে 2000 টাকা ভাড়া দিয়ে যেতে পারবেন। কয়েকজন মিলে একটি মাইক্রোবাস 3000 টাকা থেকে 5000 টাকা দিয়ে রিজার্ভ নিয়ে জাফলং যেতে পারবেন। সিলেটের যে কোন স্ট্যান্ড থেকে এই সিএনজি অথবা অটোরিক্সা যোগে জাফলং এ যাওয়া যায়। তবে সিএনজি, অটোরিকশা ও মাইক্রোবাস ভাড়া নেওয়ার সময় ভালো করে দরদাম করে নিতে হবে।

আরো পড়ুনঃ

internet download manager registration with crack

internet download manager registration with crack

internet download manager registration with crack

Internet download manager 6.33 can be easily downloaded. Internet download manager 6.33 can be installed offline after downloading.

Some words about internet download manager 6.33

Idm is very good to download movies, songs, documents, files and big files from the internet. If you can install an internet download manager very well then it can be used for a whole life. When a video movie, song, the document is downloaded, it shows the icon of the internet download manager. Clicking on this icon of the IDM opens the downloaded file and starts downloading. IDM software is a very good quality tool that greatly increases the download speed. When a file is downloaded by internet download manager 6.33. Then restart the download mode and download the schedule.

If the computer turns off when downloaded, the Internet connection goes away. For any reason after downloading, the download is again downloaded from the incomplete download section. The internet download manager software is very easy to graphic so it is user-friendly. Internet IDM 6.33 has a fast logic accelerator that increases download speed. It’s an intelligent logical software that increases the speed of download speed. IDM 6.33 is downloading any file very quickly. If there is a connection loss or computer shutdown.

But download manager starts downloading again with an Internet connection. Internet connection is off when downloading any file. For any reason, the download file is corrupted when the download is off. But when the Internet connection is reinstalled, the download started immediately, from where the internet was discontinued. Internet Download Manager supports various processes. Such as firewalls, HTTP protocols, and FTP, proxy servers, redirects, authorization, cookies, audio, and video content. IDM integrates automatically control Google Chrome, Mozilla Firebird, Opera, Microsoft Internet Explorer, AOL, MSN Explorer, Mozilla Firefox, Avant Browser, MyIE2 browser.

IDM controls the download process of all other popular browsers in the world. You can download the file by dragging or dragging any file from the command line in Internet download manager 6.33. You can download any file by IDM using Internet Modem. IDM can download files containing various features, such as ZIP File, RAR File, virus file, and file. The IDM 6.31 version adds compatibility for Windows 10. Moreover, it supports Windows 8, Windows 8.1. You can download Internet download manager 6.32 in full.

Important Features of Internet Download Manager 6.33

1. Any kind of multimedia can be downloaded. The application works fast to download large files of video songs, movies, audio, tones.
2. It can be easily used as a user-friendly interface.
3. It automatically controls downloads of all popular browsers in the world.
4. It can be installed offline.
5. With IDM, each file, video, audio, the document is downloaded to different folders.
6. The IDM Extension can be easily added to the browser.
If you do not see the IDM Extension problem and the IDM icon on the YouTube video, you can see the following video.

Internet Download Manager Technical Information:

1. The full name of the software IDM Internet Download Manager 6.33
2. The zip file is a total of 11 MB.
3. It can be installed offline
4. Software is compatible for 32 bits and 64 bits.

How to download internet download manager serial?

The download links of internet download manager of different websites are given. But they do not have IDM crack version. Because there is no IDM patch file, it can not be used for a lifetime. Links to various websites are linked with IDM free download, but they also transfer to different websites. As a result, our valuable time and internet are lost. I downloaded the IDM free download with crack file, but we do not have any work. However, our website does not have to be such a problem. On my website below, the download link will be provided.

From there you can download the free IDM with IDM free download with crack. This file will have an IDM crack version. How to install IDM can be used in free life? How to use internet download manager 6.32? Please see my YouTube video for this.

How to install the download manager using Lifetime? Watch the video from where the subject will be given a video. Then you can use the Internet Download Manager 6.31 lifetime. If you want to download the Internet Downloads manager 6.31? Then never use the Chrome browser. Because the zip file that you download will be called the Google Chrome virus. Consequently, you cannot download it in any way. You need to use the Microsoft browser to download the Internet Download Manager 6.31 software. So you can download it right without any hassle.

We will be given two download links at the bottom of this post. One is the Internet Download Manager 6.33 The other is Internet Download Manager 6.31. You can download any Internet Download manager. But Internet Download Manager 6.31 will be able to use the whole life. So the Internet Download Manager registration Key is given. You can get Internet Download Manager registration by watching my video.

When you click on the download link, you will get a link to Google Drive in Notepad, copy this link. Then paste this link with a tab in Microsoft Browser, then search. Then download the zip file from Google Drive will be downloaded. Again, do not try to download from Google Chrome immediately. So you can not download the software.

How to install Internet Download Manager 6.31?

After the IdM patch download, it will get in the form of the zip file. Extract the Internet Download Manager 6.31 zip file. Before extracting the file, stop the real-time protection of Virus and threat protection settings. Go to Update and Security-Virus and threat protection-Virus and threat protection settings-Real time protection. You will see a folder after the zip file is Extract. There are install files and patch files in this folder. First install the best download manager, according to my video. But do not open IDM after installation.

Put the pointer on the IdM icon and click on the right button. Then click one of the options called Open file location. Copy the IdM patch file and paste it here. Then, here, you’ll click the right button to put the mouse pointer over the IDM patch file. Complete the Internet Download Manager registration by Run as Administration.

You can Download Internet Download Manager 6.33

Download IDM 6.33

You can free download IDM 6.31

Download IDM 6.31

Thanks,

Study Based

Read More:

How to download Adobe Audition CC 2019 for lifetime

Bijoy bayanno 2018 free download

Bijoy bayanno 2018 free download

Bijoy Bangla keyboard download and dot net framework 3.5

Bijoy 52 for writing Bangla is the best quality software. Bengali is easily written through Bijoy bayanno 2018. We used Avro Keyboard before. Unicode was used for Avro keyboard for writing Bangla. We used to get a lot of trouble for writing using Unicode. Unicode cannot be written quickly.

Many people use Avro keyboards to write online. But easier to write than Bijoy bayanno 2018 is very good quality software. How to Bijoy bayanno 2018 free download? By Bijoy 52, Bengali is easily written. Bijoy bayanno 2018 This is very popular software. Software Bijoy bayanno was released for Windows XP in 2009.

Again Bijoy bayanno was released for Windows XP and Vista in 2010. In addition 2011 was published for Windows Seven Bijoy bayanno. The last version was made in 2012 but again it was completed in 2018. Bijoy 52 is a great software for those who use Bijoy Bangla keyboard. Hopefully, it will be a lot easier for beginners. Besides, you can download the Avro Keyboard for free.

Some things about Bijoy applications

Those who have used the software before, hope everyone knows Bijoy bayanno 2014 is a very good application. Different software can be downloaded in the market. Similarly, Avro keyboard is available in free as an alternative to Bijoy bayanno. If you want to buy Bijoy bayanno you have to invest money.

Bijoy 52 is available in the market CD format, but if you want to buy or buy Bijoy bayanno free? They all do not forget to mention the contribution of Mustafa Jabbar. Bijoy 52 software is not free to download the software. You can easily download Bijoy 52 software from my download link here. Watch the video below to download and install Bijoy 52 applications correctly.

Fixes the problem of Windows 8 / 8.1 and Windows 10’s dot-net framework 3.5

Bijoy 52 is a computer problem when installing. It is not easy to install when installing dot net framework 3.5. Installing dot net framework 3.5 is a big problem. There is a solution to this problem in YouTube and various social media. But installing the dot net framework 3.5 does not fix properly. If you download it from here, then there is a lot of great advantage of installing dot net framework 3.5. Installing dot framework 3.5 will not make any problems for you.

You can install and use beautifully. If you can not install, then watch the video on my YouTube. Please install my video after downloading Bijoy bayanno free. Hope you will not get any problems. If you are a new viewer of YouTube, then you must subscribe to my channel.

How to download Bijoy 52?

Bijoy 52 download link is available on different websites. When downloading from these download links, they transfer to different links. As a result, our time and the internet are lost. Although Bijoy 52 can be fully downloaded, the dot net framework 3.5 is very difficult to install. As a result, Bijoy bayanno 2018 software cannot be installed. However, you can download Bijoy bayanno 2018 very easily on my website. The download link of Bijoy keyboard will be provided at the bottom of this post. From there, download the Bijoy keyboard.

When you click on the download link, you will get a link on Google Notepad. Copy this link, then go to any browser and take a new tab. Search the search by pasting the link in this tab, then you can download Bijoy Bangla keyboard software free from Google Drive. Use IDM software for Bijoy Bangla keyboard software free download.

Click here to download IDM with IDM crack file. Watch the video of my YouTube for how IDM software can be used for a lifetime. From my video on YouTube, the link to the linking of IDM software is given to the discretion link, from there download it. How to install Bijoy Bangla keyboard download in full? That’s why I come to watch videos on YouTube.

You can download Bijoy 52 easily

Bijoy 52 Latest Version

Or

Download

How to install Bijoy 52?

After downloading properly, a zip file can be found after downloading it properly. Extract the zip file first, then a folder can be found. There will be seven options in this folder. There will be an application called Bijoy bayanno 2014. This is the application file of Bijoy bayanno, when double click on it. Then it will open in the form of a flash player, there will be four options. One is Bijoy bayanno and another Bijoy directive and another one is closed. Click on the first option, then you will find all the directions for the install. Follow my video to install properly.

Thanks,

Study Based

Read More:

IDM full version free download with Serial Key Crack

AVS image converter free download with serial key

AVS image converter free download with serial key

AVS image converter free download with serial key

We post different types of pictures on social media. It is necessary to convert these pictures from time to time. To share our pictures to social media, look for the photo converter software. Find different types of converter software for converting pictures. You can download the free picture converter, but the software does not have a serial key. That is why our computer cannot always use the converter application. Today you can download AVS image converter for free. You can easily convert any kind of picture with AVS Converter. In addition to the converter, the image can be converted to an online image converter.

You can convert any image to jpeg, picture to pdf, photo to word, gif, tiff, convert jpg to pdf, convert pdf to jpg, bmp, tga, ras. You can use effects in any photo. You can change the image directly from the PDF file. Also, you can convert from image to ward. I can say AVS image converter can kill two birds with one stone. Because, it’s working on a lot of things too easily, too. Photos and effects can be easily used in pictures. To set a picture, you can work on all the photos together by simultaneously converting a lot of pictures together. You can easily access the application without any hassle. You will find many good quality pictures. Download the AVS image converter very easily.

What types of features of AVS image converter?

Let’s now know what you can do with AVS image converter. 1. Pictures of different formats can be converted 2. You can apply effects on photo 3. The image can be resized 4. Watermark tool can be used in picture 5. convert pdf to jpg. 6. Jpeg to word

How to download AVS image converter? Application?

How to download an image converter application? Download link from anywhere in my post, download it from there. When you click on the download link, a new window will open. You can download jpg to pdf application in the free convert. You will be taken to a Google Drive drive. There will be a link to a notepad. Copy this link first and then open a new tab from any browser. Take a new tab, paste the link there and visit the link. So you can download 30MB files directly.

There are three folders in this file. For example, there is a software, a crack file, and a help video. You will first see the video. How to install the converter for a lifetime? At first, you install the software. You do not have to open the image converter after installing. There is an icon of the AVS image converter on your desktop. Right, click the mouse pointer and right click button will open the file location option. Paste the AVS image converter where it is installed. Then the picture converter installation will be complete. Then open the converter and convert your desired photos to your wishes.

You can download AVS Pro version

Download

AVS image converter

Download

How to use jpg converter tool?

First, open the software. Directly connect the many photos to the software after the software is open. You can take photos of any of your folders directly here. After selecting the picture, you can convert it to any file. You can resize the picture that you want to convert. You can change the names of the pictures. You can add effects to photos and use the watermark tool as well.

Thanks,

Study based

Read More:

Photo Data Recovery Software Free Download

ICC Cricket World Cup 2019 offical in Bangladesh Time

ICC Cricket World Cup 2019 official Schedule in Bangladesh Time

ICC Cricket World Cup 2019 Schedule in Bangladesh Time

 

Match Date BD Time Team Venue
Match 43 05 July 2019 3.30 PM BD time Pakistan vs Bangladesh Lord’s, London
Match 44 06 July 2019 3.30 PM BD time Sri Lanka vs India Headingley, Leeds
Match 45 06 July 2019 6.30 PM BD time Australia vs South Africa Emirates Old Trafford, Manchester
1st Semi-Final 09 July 2019 3.30 PM BD time TBC vs TBC (1 v 4) Emirates Old Trafford, Manchester
2nd Semi-Final 11 July 2019 3.30 PM BD time TBC vs England (2 v 3) Edgbaston, Birmingham
Final 14 July 2019 3.30 PM BD time TBC vs TBC Lord’s, London

 

 ICC world cup 2019 Time Table

 

There are several matches of ICC world cup 2019. The match between Bangladesh and South Africa was held in that. Bangladesh Cricket Team won the game. The reasons for writing today’s blog are Those who do not know the timing of ICC cricket world cup 2019 schedule according to Bangladesh time. All the matches of the World Cup were held according to the right time. For you, the Cricket World Cup 2019 schedule is beautifully arranged.

 

How to watch direct streaming of ICC world cup with a laptop or a PC? Besides, you can watch the game directly with Android Mobile. That’s why I can watch YouTube videos and get links to apps directly. There is no problem with these apps. You can see the World Cup game without distraction.
Some unknown words about the Cricket World Cup. The manner in which each group plays on a group stage, but this is not the case. Now the teams of the cricket world cup are not sorted in any group form. The teams that participated will play with each other. Ten teams participated in the World Cup. They will play a total of 45 games. But there is no problem in a knockout game. So if they play three matches at the semi-finals and finals, then a team will be considered as the four-time best team.

 

Bangladesh played the first match in the World Cup against South Africa on the second oval on June 2. Bangladesh won this game. Today’s match will be played against New Zealand at the same venue. The friendly match will be held in Cardiff with England in the preliminary stage. Sri Lanka vs Bangladesh will be played on June 21 in the rain. Bangladesh will play on June 17 with the West Indies. Moreover, Mashrafeera will play with Australia on 20th June. Again on June 24, Bangladesh will play with Afghanistan. Bangladesh will fight against India on July 2 next month. The venue of the game in Birmingham.
The last match against Pakistan will be held on July 9 with Bangladesh. The final game will be held on the 14th of July. We are very hopeful Bangladeshis win the ICC Cricket World Cup 2019.

 

Read More:

 

IDM full version free download with Serial Key Crack

 

 

 

Sajek Valley

Sajek Valley

সাজেক ভ্যালি(Sajek Valley) অতি সাম্প্রতিক সময়ে সবচেয়ে অতি প্রিয় গন্তব্য স্থল সাজেক। এটি বাংলাদেশের রাঙ্গামাটির জেলার বাঘাইছড়ি উপজেলায় অবস্থিত এবং এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় ইউনিয়ন হিসেবে খ্যাত। সমুদ্রপৃষ্ঠ হতে সাজেকের উচ্চতা 1800 ফুট উঁচু। সাজেক রাঙ্গামাটি জেলার হলেও এটি খাগড়াছড়ির দিঘীনালা থেকে অনেক কাছে এবং যাতায়াত ব্যবস্থা খুবই সহজ।

দীঘিনালা থেকে সাজেক এর দূরত্ব মাত্র 40 কিলোমিটার এবং খাগড়াছড়ি থেকে সাজেক এর দূরত্ব ৭০ কিলোমিটার। আপনি যদি সত্যিকারে সাজেকে যেতে চান, তাহলে বাঘাইহাট থেকে আর্মি ক্যাম্প অথবা পুলিশ ক্যাম্প থেকে অনুমতি নিতে হবে।

সাজেকে গিয়ে কি কি দেখতে পাওয়া যাবে?

সাজেকের(sajek valley resort) চারপাশে মনমুগ্ধকর পাহাড়ের সারি এবং সাদা তুলার মত মেঘের ভেলা আপনাকে মোহিত করবেই। সাজেক খুবই আশ্চর্যজনক স্থান তাই একই দিনে প্রাকৃতিক তিন রকম রুপের ছোঁয়ায় আপনাকে চমৎকৃত করবে। কখনো আপনার চারপাশ ঘন কুয়াশায় ঢেকে যাবে কখনো গরম অনুভূত হবে হয়তোবা হঠাৎ হঠাৎ আপনি বৃষ্টিতে ভিজে যাবেন। এক পাহাড় থেকে আরেক পাহাড় তুলার মত মেঘের পুরো খেলা দেখতে পারবেন।

সাজেকে ভ্রমণে আসা ভ্রমণ প্রেমিকদের কাছে প্রধান আকর্ষণ হচ্ছে কঙ্কাল পাহাড়। সাজেক ভ্যালি কংকাল পাড়া গ্রামের লুসাই জনগোষ্ঠী দ্বারা অধ্যুষিত হচ্ছে এলাকাটি। আমাদের দেশের কর্ণফুলী নদীর উৎপত্তিস্থল ভারতের লুসাই পাহাড় টি এই কঙ্কাল পাড়া গ্রাম থেকে দেখা যায়। যদি কমলোক ঝরনা দেখতে চান তাহলে রুইলুই পাড়া থেকে আপনাকে 2 ঘণ্টার ট্রেকিং করতে হবে। অনেকের কাছে সুন্দর ঝর্ণাটি সিকাম তৈশা বা পিদাম তৈসা নামে পরিচিত।

শিল্পীর তুলিতে আঁকার মতোই সাজেক ভ্যালি আপনার কাছে দিনে অথবা রাত অপরূপ মনে হবে। সময় গড়ে যাচ্ছে তবুও সাজেক যেন দিন দিন আরো নতুন হয়ে উঠছে। সাজেকে গেলে অবশ্যই সকালের সূর্যোদয় এবং মেঘের খেলা কখনো মিস করবেন না। কারণ এই সময়টাতে মেঘের খেলা এবং সূর্য উদয় ঘটে। তাই এই খেলাটি দেখতে হলে অবশ্যই আপনাকে খুবই ভোরে উঠতে হবে এবং এর জন্য রওনা দিতে হবে হেলিপ্যাডে। কারণ এই জায়গা থেকে সূর্য উদয় খুবই সুন্দর ভাবে দেখা যায়।

যদি সূর্যাস্তের রঙ্গিন রূপ দেখতে চান তাহলে অবশ্যই সাজেকের কোন উঁচু স্থান থেকে দেখতে হবে। যদি রাতের আকাশের কথা বলি তাহলে সন্ধ্যার পর আকাশে কোটি কোটি তারার মেলা আপনাকে বিমোহিত করবে। রাতের আকাশ যদি পরিষ্কার থাকে তাহলে দেখতে পাবেন মিল্কিওয়ে বা ছায়াপথ। পাহাড়ি অঞ্চলের আদিবাসীদের যদি জীবনযাত্রার মান দেখতে চান। তাহলে আপনাকে চারপাশটা ঘুরতে হবে তাহলে আদিবাসী মানুষের সান্নিধ্য আপনাকে অনেক ভালো লাগবে। যদি হাতে আরো অনেক সময় থাকে তাহলে সাবেক থেকে ফেরার পথে আরো ঘুরে আসতে পারেন দীঘিনালা ঝুলন্ত ব্রিজ দীঘিনালা বন বিহার এবং হাজাছড়া ঝর্ণা।

কখন সাজেক ভ্রমণের উপযুক্ত সময়?

বর্ণিল সাজে সারা বছরই সাজেক সাজিয়ে থাকে তাই সাজাকের রূপের তুলনা হয় না। বছরের প্রতিটি সময়ে আপনি সাজেক ভ্রমণ করতে পারেন তবে শরৎ, বর্ষা ও হেমন্তে সাজেকের চারপাশে মেঘের খেলা সবচেয়ে বেশি দেখা যায়। তাই সাজেক ভ্রমণের এটাই সবচেয়ে বেশি উপযুক্ত সময়।

সাজেকে যাওবার সহজ উপায়?

যেহেতু খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা থেকে সাজেকের দূরত্ব খুবই কম তাই আপনি তাড়াতাড়ি যাবার জন্য খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা হয়ে যাবেন। সাজেক রাঙ্গামাটি জেলার হলেও এটি রাঙ্গামাটি থেকে প্রায় অনেক কিলোমিটার দূরত্বে। এজন্য প্রথমে খাগড়াছড়ি আসতে হবে। আপনি যে কোন জেলার ই হোন না কেন। আমি ঢাকার কথা বলব ঢাকা থেকে প্রায় অনেকগুলো বাস পাওয়া যায় তার মধ্যে শান্তি পরিবহন, শ্যামলী, এস আলম পরিবহন, ঈগল পরিবহন এবং সৌদিয়া পরিবহন বাস উল্লেখযোগ্য।

এসি নন এসি বাসের পার্থক্য অনুসারে ভাড়ার পার্থক্য হয়ে থাকে। নন এসি বাসের ভাড়া প্রায় পাঁচ শত বিশ টাকা ও এসি বাসের ভাড়া 700 টাকা। এসি বাসের মধ্যে বিআরটিসি এবং সেন্টমার্টিন পরিবহন খুবই ভালো। এসব বাসের কাউন্টার ঢাকা গাবতলী কলাবাগান সহ বিভিন্ন প্রান্তে এসব বাস কাউন্টার রয়েছে।

খাগড়াছড়ি থেকে সাজেক এর মোট দূরত্ব মোটামুটি 70 কিলোমিটার। সাজেক ভ্যালি যেতে তাদের গাড়ি অথবা জিপ গাড়ি ভাড়া নিয়ে যেতে পারেন। আসা যাওয়া থেকে শুরু করে দুই দিনের মোট ভাড়া নিবে 8000 থেকে 10000 টাকা। তবে একটি গাড়িতে আপনারা মোট 12 থেকে 15 দিন যেতে পারবেন।

যদি আপনাদের লোক কম হয় তাহলে অন্য গুরুপের সাথে কথা বলে শেয়ার করে গাড়ি নিলে আপনাদের খরচ অনেক কম পড়বে। যদি তাও সম্ভব না হয় তাহলে সিএনজি দিয়ে সাজেকে যেতে পারেন সে ক্ষেত্রে ভাড়া লাগবে ৪০০০ থেকে 5 হাজার টাকা। কিন্তু পাহাড়ের রাস্তা অনেক উঁচু নিচু হওয়ার ফলে সিএনজি দিয়ে ভ্রমণ না করাই ভালো।

আপনারা যদি দুই-তিনজন হয়ে থাকেন তাহলে খাগড়াছড়ি শাপলা চত্বর থেকে অনেক গুরুপ পাওয়া যায়। সেসব গুরুপের সাথে কথা বলে তাদের গাড়ি শেয়ার করতে পারেন অথবা জীব সমিতির সাথে কথা বললে উনারা যে কোন গুরুপের সাথে ম্যানেজ করে দেবে।

প্রথমে ঢাকা থেকে খাগড়াছড়ি গিয়ে সেখান থেকে দীঘিনালায় গিয়ে তারপর সেখান থেকে সাজেকে যেতে পারবেন। খাগড়াছড়ি থেকে দীঘিনালার ভাড়া বাসে মাত্র 35 টাকা এবং মোটরসাইকেলে যদি যান তাহলে জনপ্রতি 100 টাকা করে লাগবে। কারণ খাড়াছড়ি থেকে দিঘীনালার দূরত্ব মাত্র ২৩ কিলোমিটার। যদি কারো সাথে ভাড়া শেয়ার করতে না পারেন অথবা আপনার সামর্থ্য থাকে।

তাহলে একাই মোটরসাইকেল ভাড়া নিয়ে সাজেক ঘুরে বেড়াতে পারেন। তবে যে কোন গাড়ি ঠিক করার আগে কোন জায়গা গুলো ঘুরে দেখবেন এবং আপনার পুরো প্লান গুলো আগে থেকে ঠিক করবেন তারপর গাড়ী ঠিক করবেন। আপনাকে সবসময় মনে রাখতে হবে আপনি যে জায়গা থেকে যান না কেন।

আপনাকে দীঘিনালায় দশটার আগেই পৌঁছাতে হবে। কারণ বাকি রাস্তা নিরাপত্তার জন্য সেনা বাহিনীর এসর্কোটে গিয়ে এসর্কোট গ্রহণ করতে হবে। সেনাবাহিনীর দিনে মাত্র দুই বারই এসর্কোট দিয়ে থাকেন। একবার হচ্ছে সকাল দশটায় এবং আরেকবার বিকালের দিকে। তাই মিস করলে আপনাকে বিকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। কিন্তু যদি বিকেলের তাও মিস করেন, তাহলে পরের দিন সকাল পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।

এই এসর্কোট ছাড়া কোনভাবেই ওই জায়গায় যাওয়ার অনুমতি পাবেন না। দিঘীনালা ঘুরে দেখার পর যদি হাতে সময় পান তাহলে হাজাছড়া ঝর্ণা ঘুরে দেখতে পারবেন। খাগড়াছড়ি জেলা শহর থেকে সাজেকে যেতে আপনার সময় লাগবে দুই থেকে প্রায় তিন ঘণ্টা।

 

আরো পড়ুনঃ