Hack any wifi password without Root

How to hack wifi password without root
আমরা সবাই চেষ্টা করেছি অন্যের wifi Password চুরি করে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে। তাই ইউটিউব, গুগলে অনেক সার্চ করেছি, কিভাবে wifi Password হ্যাক করা যায়। হাজারো ধরণের পোস্ট অনেকে অনেক ভাবে করেছে যে কিভাবে wifi Password হ্যাক করা যায়। কিন্তু হাস্যকর বিষয় হল এতে আপনি সফল হতে পারেননি। যারা wifi Password হ্যাক করতে পারেননি তাদের জন্যই এই পোস্টটি। পোস্টটি মনোযোগ সহকারে পড়ুন এবং প্রতিটি ধাপগুলো যথাযথ ভাবে অনুসরন করলে আশা করি 90% হ্যাক হবেই। অথবা যদি সঠিক ভাবে বুঝতে না পারেন তাহলে আমার এই ভিডিওটি দেখলে আর কোন ধরণের সমস্যাই হবেনা, আপনার কাজটি সফল হবেই।

আসলেই wifi password hack করতে পারবেন মাত্র 2 মিনিটেই। ওয়া্ই-ফাই পাসওয়ার্ড হ্যাক করার জন্য আপনাকে একটি অ্যাপস ব্যবহার করতে হবে। আমাদের এই পোস্টটির শেষের দিকে ডাউনলোড লিংক দেয়া থাকবে, সরাসরি সেখান থেকে ডাউন্রেরাড করতে পারবেন কোন রকম ঝামেলা ছাড়াই।আমি এটা প্রমাণ করেছি বিধায় আপনাদের জানানোর জন্যই আজকের এই পোস্টটি। এতে আমাদের কোন লাভ নেই।

যদি আপনার কাজটি সফল হয় তাহলে অব্যশই আমাদের ইউটিউব চ্যানেলটি Subscribe করে দিবেন। আমাদের চ্যানেলটি

ওয়া্ই-ফাই পাসওয়ার্ড হ্যাক করার  আরেকটি বিষয় হল আপনার হ্যান্ড সেটটি অব্যশই ব্র‌্যান্ডের সেট এবং মিনিমাম পনের হাজার টাকার উপরের হতে হবে।য যদি তা না হয়, তাহলে সেটটিকে রুট করে নিতে হবে। হ্যান্ড সেটকে কিভাবে রুট করতে তা জানার জন্য গুগলে অথবা ইউটিউবে হাজারো রকমের ভিডিও খুজে পাবেন। সেগুলো দেখে শিখে নিয়ে আগে রুট করে নিন। তারপর আমাদের এই ট্রিক্সটি ব্যবহার করেন। কারণ, নিয়মগুলো যথাযথ না মেনে কাজ করেন তাহলে ওয়া্ই-ফাই পাসওয়ার্ড হ্যাক কোনদিনও হবেনা। তখন হয়তো খারাপ মন্তব্য করবেন। তাই নিয়মগুলো আগে পালন করুন।

Apps টি এখান থেকে Download করুন

Download Here……

Apps টি Download করার পরে নিচের ছবিটির মতই ইন্টারফেজ দেখাবে। তখন আপনি Scan নামক আইকনটিতে ক্লিক করে আগে স্কেন করে নিন। তীর চিহ্ন দ্বারা তা চিহ্নিত করে দেওয়া আছে।

wps Wpa Tester apps

এরপর আপনার এরিয়াতে থাকা wifi নেটওয়ার্ক গুলো নিম্নোক্ত ভাবে দেখাবে।

wps Wpa Tester wifi network

তারপর যেটাকে হ্যাক করতে চান সেই নেটওয়ার্কে ক্লিক করুন।

তারপর নতুন Scan দেখতে পাবেন। warning নোটিফিকেশন সো করবে, সেটাকে ক্লোজ করে দিন।

wps Wpa Tester warning

এর পরের warning টা দেখালে তা yes করে দিন।

wps Wpa Tester

নিচের ছবিটিতে লক্ষ্য করুন অথবা আপনার সেটের Scan টিতে।

wps Wpa Tester hack successful

Scan টির উপরের ডানদিকে দুটি অপশন দেখতে পাচ্ছেন তা টিক চিহ্ন দিয়ে দিন যেমন New Method এবং No Root। যদি উন্নতমানের ফোনসেট না হয তাহলে রুট করবেন। মনে করেন রুট করা আছে, তাহলে ফোন এর স্কিন এর বামপাশে Old Method and Root এ টিক চিহ্ন দিযে দিন্ এরপর Connect Automatic with try all pins অপশনে ক্লিক দিন।

wps Wpa Tester hack successful

এরপর wps Wpa Tester is trying to turn Wi-fi on Or off নোটিফিকেশন আসলে তা Allow করে দিন।

তারপর Connection Successful দেখাবে।

পোস্টটি ভাললাগলে সবার কাছে শেয়ার করবেন এবং আমাদের সাথে ইউটিউবে কানেক্ট থাকবে চ্যানেলটি সাবস্ক্রাইব করে রাখুন।

ব্যাটারির ব্যাকাপ বাড়ানোর গোপন ট্রিক্স

ফোনের চার্জ 72 ঘণ্টা পর্যন্ত ব্যাকাপ নেওয়ার উপায়

আমরা যারা অ্যান্ড্রয়েড ফোন ব্যবহার করী, আমরা সবাই একটি কমন বিষয়ে সমস্যার সম্মুখীন হয়েছি, তা হলো ফোনের চার্জ যেন পানির মত তাড়াতাড়ি চলে যায়। তখন মনের মাঝে অনেক বিরক্তবোধ হতে থাকে যেন ফোনটিকে এখনই আছাড় মেরে ভেঙ্গে ফেলী। কিন্তু বন্ধুরা আপনাদের এরকম বিরক্তবোধ থেকে সমাধান দিতেই আজকের এই পোস্টট।

 

আপনার Android Phone এর Battery এর Backup বাড়ানোর জন্য একটি Apps লাগবে। Appsটির Download Link থেকে সরাসরি ডাউনলোড করতে পারবেন।

 

Download Here….

 

Apps টি Download করার পরে নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুণ অথবা ভিডিওটি দেখে নিন। Charge Increase Apk Download করার পরে Open করুন।

 

Charge Booster

 

Open করার পরে এরকম দেখাবে

 

এখানে Charge Booster Optionটিতে দেখিয়েছে Android Phoneটির Running Process এবং RAM Uses parcentace আপনি OPTIMIZE এ ক্লিক করুন।

 

এর পরের Optionটি হলো Battery Saver এই Battery Saver এর অধীনে আছে আরো তিনটি অপশন।

 

Battery Saver

 

১. Normal Mode

 

Normal Mode হলো আপনার ফোনের Defalt Charging Mode

 

  1. Ultra Mode

Ultra Mode যদি আপনি অ্যাকটিভ করে দেন তাহলে ফোনের ব্যাকাপ প্রায় ৩-৪ ঘণ্টা বেড়ে যাবে। আপনি সব সময় Ultra Mode ব্যবহার করবেন তাহলে ফোনের অবস্থা সব সময়ই ভাল থাকবে।

  1. Exterme Mode

 

যদি Ultra Mode এর চেয়ে আরো অধিক ব্যাকাপ চান তাহলে Exterme Modeটি ব্যবহার করতে পারেন। এটা করার জন্য জাস্ট অপশনটি Active করে দিন।

Charge Booster এর পরবর্তী ধাপটি হলো CPU Cooler এই অপশনটি হলো  Battery তাপমাত্রা কত ডিগ্রি সেন্টিগ্রেডে রয়েছে।

 

CPU cooler

 

যদি  Battery এর তাপমাত্রা অধিক থাকে তাহলে অপশনটি লাল হয়ে থাকবে। এজন্য আপনাকে নরমার মোডে আনতে হবে। তখন এর কালারটি এরকম গ্রিণ দেখাবে।

Charge Booster এর পরবর্তী ধাপটি হলো Junk cleaner. আপনার ফোনে গোপনে অনেক Junk file থাকে যেগুলো মেমোরিতে সহজে দেখতে পাইনা।

 

Junk cleaner

 

এসব ফাইল মেমোরির অনেক জায়গা দখল করে রাখে ফলে এগুলো গোপনে অ্যাকটিভ থাকার কারণে ফোনের ব্যাটারির চার্জ তাড়াতাড়ি শেষ হতে থাকে। তাই এসব জাংক ফাইল ডিলিট করতেই এই অপশনটি দেওয়া হয়েছে।

তাই Junk file এখান থেকে ডিলিট করে দিন। এর পর আশা করি আপনার ফোনের চার্জ সহজেই শেষ হবেনা।

তা বন্ধুরা আশা রাখছি এই ট্রিক্সটি আপনাদের কাজে লাগবে। এউ পোস্টটি কেমন লেগেছে তা কমেন্ট করে জানাবেন।