অনিয়মিত মাসিকের কারণ ও প্রতিকার

[et_pb_section fb_built=”1″ admin_label=”section” _builder_version=”3.0.47″][et_pb_row admin_label=”row” _builder_version=”3.0.47″ background_size=”initial” background_position=”top_left” background_repeat=”repeat”][et_pb_column type=”4_4″ _builder_version=”3.0.47″ parallax=”off” parallax_method=”on”][et_pb_text admin_label=”Text” _builder_version=”3.2″ background_size=”initial” background_position=”top_left” background_repeat=”repeat”]

মেয়েদের অনিয়মিত মাসিকের কারণ ও প্রতিকার

অনিয়মিত মাসিক

অনিয়মিত পিরিয়ড বা মাসিক নিয়ে আমাদের অনেকেরেই এই একটা সমস্যাই পড়তে হয় । গর্ভ ধারনের সমস্যা ছাড়াও ওজন হ্রাস , স্ট্রেস , থাইরাইড সমস্যা মানসিক চাপ অতিরিক্ত ব্যায়াম , হরমোনের ভারসাম্য অর্থাৎ বিভিন্ন কারনে হঠা’ৎ করেই আপনার নিয়মিত মাসিক অনিয়মিত ভাবে হতে পারে ।

অনিয়মিত মাসিকের কারণ সমূহঃ

  • শরীরে ইস্ট্রোজেন ও প্রজেষ্ট্রেরণ হরমোনের তারতম্যের কারনে মাসিক আনিয়মিত হয়ে থাকে ।
  • অতিরিক্ত ব্যায়াম অথবা ব্যায়াম হিনতার কারনে অনিয়মিত হতে পারে ।
  • এছাড়া , মেনটাল প্রেসার বা মানসিক চাপের কারনে অনিয়মিত হয়ে থাকে ।
  • জড়ায়ু দূর্বলতার কারনে
  • হঠাৎ করে জন্মনিয়ন্ত্র পিল খাওয়া বন্ধ করে দিলে ।
  • শরীরে রক্ত শূন্যতা বা এ্যানিমিয়ার ফলে
  • শরীরে অস্বাভাবিক ওজন হ্রাস- বৃদ্ধির তারতম্য ঘটলে
  • এছাড়াও সহবাসের সময় পুরুষের শরীর থেকে আসা বিভিন্ন রোগ যেমন – গনোরিয়া , সিফিলিস ইত্যাদি এর
  • ফলে মাসিক অনিয়মিত হতে পারে ।
মাসিককে নিয়মিত করতে দেখুন আমাদের ঘরোয়া টিপসঃ
পিরিয়ড কে নিয়মিত করতে আদা বেশ গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখে । তাই জেনে নেই আদার ব্যবহার ।

আদাঃ এক কাপ পানিতে ২ চা চামুচ আদা কুচি কুচি করে কেটে ৭-৮ মিনিট ধরে সিদ্ধ করে নিয়মিত ৩ বেলা এই আদা মিশ্রণটি খাওয়া যেতে পারে ।

আদা

আপেল সাইডার ভিনেগারঃ  প্রতিদিন খাবার আগে ৩-৪ টেবিল চা চামচ আপেল সাইডার ভিনেগার পানির সংমিশ্রণে পান করুন । এটি রক্তের ইনসুলিন ও ব্লাড সুগার কমিয়ে দেয় । যা মাসিক ‍নিয়মিত করে দেয় ।

ভিনেগার

ভিনেগার

তিলঃ  তিল আমাদের শরীরে সাধারণত হরমোন তৈরি করে থাকে । তিলের গুড়া প্রতিদিন সকালে খালিপেটে পানি মিশিয়ে খেতে পারেন। একটু স্বাদের জন্য চাইলে গুড় অথবা চিনি মিশিয়েও খেতে পারেন ।

 তিল

টক জাতীয় ফল : তেতুঁল মেয়েদের জন্য সর্বোচ্চ লোভনিয় ফলের মধ্যে অন্যতম । তাই অনিয়মিত মাসিক কে নিয়মিত করতে তেতঁলের জুড়ি মেলা ভাড় । তাই চিনি বা গুড় মেশানো পানিতে ২-৩ গ্রাম তেতুঁল এক ঘন্টা ধরে পানিতে ভিজিয়ে রাখুন এরপর লবণ ও জিড়া গুঁড়া মিশিয়ে ‍ুদিনে অন্তত ২ বার পান করুন । এই উপাদান টি আপনার অনিয়মিত মাসিক কে নিয়মিত করতে সাহায্য করবে ।

ব্যয়াম : ব্যায়াম এর কারনে পেশী সাধারণত বাধা পেয়ে থাকে । যার ফলে পেশী সংকোচন শুরু করে । শরীরে রক্ত সঞ্চালন কমিয়ে দেয় । পিরিয়ড শেষ হবার পরে ব্যায়াম করলে পরবর্তিতে সঠিক সময়ে মাসিক হওয়ার সম্ভবনা থাকে ।

আমাদের পূর্ববর্তী পোস্ট যদি মিস করে থাকেন তাহলে নিম্নোক্ত লিংক থেকে সরাসরি ভিজিট করতে পারেন।

অন্যান্য উপাদান :

  • আঙ্গুর ফল বা আঙ্গুরের জুস খেতে পারে ।
  • করলার রস
  • কাচাঁ পেপেঁ
  • ধনিয়া পাতা বা ধনিয়া পাতার গুঁড়া ।
  • সিদ্ধ ডুমুরের পানি ছেকে পান করা ।

পিরিয়ডের আগে অর্থাৎ অন্তত ২ সপ্তাহ আগে আখের রস পান করাঃ
এছাড়াও শরীরে আয়রণ জনিত অভাবে মিনস অনিয়মিত হয়ে থাকে তাই প্রচুর পরিমানে আয়রন জাতীয় খাবার খেতে হবে । তার পাশাপাশি আমিষ খাবার ও খেতে হবে । অতেএব, মাংস জাতীয় খাবারের পাশাপাশি ডিম, চিংড়ি , গুড়া মাছ , পালং শাক , মিষ্টি আলু , বাধা কপি , ফুল কপি , তরমুজ , খেজুর , ডাল , মটরশুটি , শষ্যদানা ইত্যাদি ।
খাদ্যাভাস : এই অনিয়মিত মাসিক সমস্যা যদি প্রায়ই ভুগতে থাকেন তাহলে আপনাকে বুঝতে হবে যে আপনাকে খাদ্যাভাস পরিবর্তন করতে হবে । তাই আপনার খাদ্য মেনুতে প্রচুর পরিমাণে শাক সবজি ও ফলমূল রাখুন । ফলের মধ্যে আনারস অনিয়মিত মাসিককে নিয়মিত করতে বিশেষ অবদান রাখে ।

সতর্কতাঃ জানা দরকার উপোরিক্ত পদ্ধতি গুলার সবার নিকটই গ্রহনযগ্যতা রাখে না । শুধুমাত্র যারা নন গর্ভবতি মহিলা তাদের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য । যারা বিবাহিত তাদের আগে নিশ্চত হতে হবে তারা প্রেগনেন্ট কি না ।

১. পিরিয়ড কী ও সুস্থ প্রজননের জন্য পিরিয়ডের সময় কি করণীয়

২. How to hack wifi password without root

[/et_pb_text][/et_pb_column][/et_pb_row][/et_pb_section]